‘দায়িত্বপালন আমার কাছে ঈমান ও আমলের অংশ’ – পুলিশের এআইজি মো. মনিরুজ্জামান

বাংলাদেশ পুলিশের এআইজি (ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড স্পেশাল অ্যাফেয়ার্স) মো. মনিরুজ্জামান। কিন্তু কখনই তিনি তার দায়িত্ব পুলিশি কাজের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখেননি।কর্মপরিধি বাড়িয়ে রুটিন কাজের বাইরে নারী নির্যাতন, সন্ত্রাস দমন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধসহ নানা কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত করেছেন।

এসব কাজের মাধ্যমে তিনি ব্যাপক প্রশংসিত ও আলোচিত হয়েছেন। সম্প্রতি এই এআইজি ও ব্যারিস্টারের একটি আলাপচারিতা ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।এ আলাপচারিতায় জানা গেল বাংলাদেশকে নিয়ে তার প্রত্যাশার কথা। মনিরুজ্জামান বলেন, কাব্য করে নয়, সত্যিকারের তাড়না থেকেই বলছি- এই বাংলাদেশকে নিয়ে আমার অনেক স্বপ্ন। আমি আমার জীবদ্দশাতেই এ দেশটিকে বাংলাদেশ পুলিশের ভিশন স্টেটমেন্ট অনুযায়ী বাংলাদেশকে বাসযোগ্য এবং কর্মযোগ্য দেখতে চাই। আমি এমন স্বপ্ন দেখার চেষ্টা করি, যা আমাকে ঘুমাতে দেয় না।

তার কাজের মাধ্যমেই তিনি এখন সেলিব্রেটি সমতুল্য। তবে এই পুলিশ কর্মকর্তার ভাবনা অন্যরকম। তিনি বলেন, আমি নিজেকে কখনও সেলিব্রেটি ভাবি না। আমি গভীরভাবে বিশ্বাস করি, সরকারি কর্মচারীদের সেলিব্রেটি হওয়ার চেষ্টাও করা উচিত নয়। আমি দায়িত্ব পালনকে ইমান ও আমলের অংশ মনে করি।ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তিনি আড়াই বছরের বেশি সময় পুলিশ সুপারের দায়িত্ব পালন করেন।

ওই সময়ের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় নারী নির্যাতন এবং এ সংক্রান্ত মামলা খুব বেশি হতো। এসপি হিসেবে আমি খুব লজ্জা পেতাম। নারী নির্যাতন প্রতিরোধে প্রচলিত কার্যক্রমের পাশাপাশি কিছু অপ্রচলিত ধারণা নিয়ে এগিয়ে আসার চেষ্টা করলাম। নানা ধরনের উদ্ভাবনী কৌশলের প্রয়োগ ঘটাতে চাইলাম আমরা সবাই মিলেই। এরই একটি অংশ ছিল স্লোগানের মাধ্যমে গণসচেতনতা। এমনি একটি লিফলেট ছিল- ‘আপনি আপনার মেয়েটিকে শ্বশুরবাড়িতে যেমনটি দেখতে চান, আপনার বাড়িতে বউ হয়ে আসা অন্য মেয়েটিকে সেভাবেই রাখুন।’

আপাতদৃষ্টিতে অত্যন্ত অকাব্যিক এই স্লোগানটি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তো বটেই; ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাইরেও বহু মানুষের ব্যাপক নজর কাড়তে সক্ষম হয়।পুলিশ কর্মকর্তা জানান, আমরা প্রচুর ফল পেতে শুরু করি। নারী নির্যাতন নিয়ে মানুষ, অংশীজনরা ভিন্নভাবে ভাবতে থাকেন। এই স্লোগানটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়।

তিনি বলেন, ট্রাডিশনাল পুলিশিংকে গণমুখী, সেবামূলক করার চেষ্টা করেছি। শুধু ব্রাহ্মণবাড়িয়া নয়; আমি যখন যেখানে দায়িত্ব পালন করেছি, মানুষকে সঙ্গে নিয়ে নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করেছি।

Comments Us On Facebook: