Saturday , October 20 2018
Home / রাজনীতি / সমাবেশের পরই রাজনীতিতে পরিবর্তন-বিবর্তন: হাওলাদার

সমাবেশের পরই রাজনীতিতে পরিবর্তন-বিবর্তন: হাওলাদার

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে জাতীয় পার্টির সমাবেশ জনসমুদ্রে রূপ নিবে উল্লেখ করে দলটির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেছেন, ‘সারাদেশ থেকে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী সমাবেশে আসবে। আশা করছি, বিগত দিনের রেকর্ড ভেঙে এই সমাবেশ জনসমুদ্রে রূপ নেবে। এরপরই রাজনীতিতে বিবর্তন পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাবে।’বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় সম্মিলত জোট এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

রহুল আমীন হাওলাদার বলেন, ‘দেশের মানুষ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদকে সমর্থন দেবে। সেই আস্তা ও বিশ্বাস আমাদের আছে। একের পর এক হামলা-মামলা জাতীয় পার্টির ওপর চালানো হয়েছে। এরপরও এরশাদের শাসনামলের উন্নয়নের বিবেচনায় পরবর্তী সরকারের শাসনামলের গুণগত পার্থক্য কী তা নিয়ে আমরা কথা বলছি, বলব।’আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সাথে জোটগতভাবে জাতীয় পার্টি নির্বাচনে যাবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে হাওলাদার বলেন, ‘এই মুহূর্তে আমাদের প্রস্তুতি হলো পৃথকভাবে নির্বাচনে অংশ নেয়া। কিন্তু আগামীতে পরিস্থিতি বিবেচনায় পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’বিএনপি বার বার সমাবেশের অনুমতি চেয়েও পায় না, অথচ অনুমতি চাওয়া মাত্রই জাতীয় পার্টি সমাবেশের অনুমতি পেয়ে যায়। তাহলে জাতীয় পার্টির প্রতি সরকারের সদয় দৃষ্টি আছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমরা অনেক আগেই আবেদন করেছি। সে কারণে পেয়েছি। আমাদের দাবি ছিল ১৫ ফেব্রুয়ারি, কিন্তু বইমেলা থাকায় তখন অনুমতি পাইনি। আমাদের অনুমতি দেয়া হয় ২৪ মার্চ।’

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণ কানায় কানায় ভরে ফেলার মতো জাতীয় পার্টি তথা সম্মিলিত জাতীয় জোটের লোক আছে কি না। না কি আওয়ামী লীগ থেকে নেতাকর্মীদের ধার নিয়ে সমাবেশ পূর্ণ করা হবে। সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে হাওলাদার বলেন, ‘সাংবাদিকের চোখ নিশ্চয়ই ফাঁকি দেয়া যাবে না। তবে কেউ যদি স্বাগত জানাবার অভিপ্রায়ে সমাবেশে আসে তাহলে আমরা ফিরিয়ে দেব না।’সংবাদ সম্মেলনে জোট নেতারা জানান, আগামী জাতীয় নির্বাচনে ৩০০ আসনে পৃথকভাবে প্রার্থী দিবে জাতীয় পার্টির নেতৃত্বাধীন সম্মিলিত জাতীয় জোট। ইতোমধ্যে ৭০০ প্রার্থীর খসড়া তালিকাও জোটের চেয়ারম্যানের হাতে আছে। জনপ্রিয়তার কথা বিবেচনা করে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে।সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, এরশাদের উপদেষ্টা সুনীল শুভ রায়, আলমগীর সিকদার লোটনসহ জোটের নেতারা।

About editor

Check Also

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার লাশ নিতে পরিবারের অস্বীকৃতি, দাফনে বাধা

সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কে এম মোশাররফ হোসেন হত্যা মামলার প্রধান …