Tuesday , October 23 2018
Home / রাজনীতি / ক্ষমতা এদেশের রাজনীতিবিদদের এরোগ্যান করে তোলে

ক্ষমতা এদেশের রাজনীতিবিদদের এরোগ্যান করে তোলে

মুক্তিযুদ্ধের আগে আমাদের মাঝে এক প্রকার আবেগ কাজ করছিলো। আমরা দেশ স্বাধীন করবো, নিজেরা নিজেদেরকে নিয়ন্ত্রণ করবো এমন একটা আকাঙ্খা ছিলো কিন্তু দূরবর্তী কোনো ভিশন ছিলো না। সুতরাং মুক্তিযুদ্ধের পরে আমরা একটি অগোছালো অবস্থায় পরে গিয়েছিলাম। আমাদের সকল কিছুই ছিলো ধ্বংস প্রাপ্ত। আমরা তখন সেই অবস্থা থেকে উঠে দাঁড়াতে চেষ্টা করছিলাম। এর মাঝে আরো একটি ছন্দ পতন হলো ১৯৭৫ সালে। এরপরে ১৫ বছর ভিন্ন রকমের দেশ চলেছে। অবশ্য তখন এক প্রকার স্থীতিশীলতা ছিলো। ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত গণতান্ত্রিকভাবে দেশ চলেছে কিন্তু তখন আমরা রাজনৈতিক দলগুলোর মাঝে আস্থাহীনতা দেখতে পেয়েছি।বুধবার দিবাগত রাতে চ্যানেল আইয়ের ‘আজকের সংবাদপত্র’ অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন লেখক, গবেষক মহিউদ্দিন আহমদ।তিনি আরো বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো মাঝে আস্থা না থাকার কারণে আওয়ামী লীগ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের রূপরেখা দিয়েছিলো। এবং আওয়ামী লীগ তার সুফলও পেয়েছিলো। ২০০৬ সালের পরে রাজনৈতিক দলগুলো কিছুটা ঝাকুনি খেয়েছে। তাই ২০০৮ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পরে মানুষ ভেবেছিলো এক এগারো থেকে শিক্ষা নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলো ভালো হয়ে চলবে। কিন্তু তারা সেই শিক্ষা নেয়নি। বরং আমরা আগের থেকে আরো ডাউনের দিকে যাচ্ছি। স্বাধীনতার পরে আওয়ামী লীগই টানা দুই মেয়াদে ক্ষমতায় আছে।

মহিউদ্দিন আহমাদ আরো বলেন, ক্ষমতা এই দেশের রাজনীতিবিদদেরকে কখনো বিনয়ী করে না। বরং তাদেরকে এরোগ্যান করে তোলে। এটা নির্বাচনের বছর চলছে। স্বাভাবিক ভাবে আমরা আগে দেখে এসেছি যে, নির্বাচনের বছরে রাজনীতিবিদরা আরো বিনয়ী হয় এবং জনগণের কাছে এসে ভোট চায় কিন্তু এবার আমরা সেরকম লক্ষণ দেখতে পারছি না। যার ফলে এক দিকে আমরা কিছু ইতিবাচক দিক লক্ষ্য করলেও মানুষের মাঝে অনেক ক্ষোভ দেখতে পাচ্ছি কারণ লাভজনক কর্ম সংস্থান তৈরি হচ্ছে না। বেকারত্ব বেড়ে চলেছে। এমন অবস্থা বেশি দিন চলতে পারে না।

About editor

Check Also

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার লাশ নিতে পরিবারের অস্বীকৃতি, দাফনে বাধা

সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কে এম মোশাররফ হোসেন হত্যা মামলার প্রধান …