Monday , June 18 2018
Home / আলোচিত সংবাদ / জাফর ইকবালের ওপর হামলা; লাভবান হলো কারা?

জাফর ইকবালের ওপর হামলা; লাভবান হলো কারা?

ফাহিম ফয়সাল : যারা গত ৫ জজানুয়ারি ২০১৫ সালের নির্বাচন সম্পর্কে জানেন তারা নির্বাচনের আগ মুহূর্তে ও পরবর্তিতে গণজাগরণ মঞ্চের জয়জয়কার অবস্থা সম্পর্কেও জানার কথা। তখনকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায়, জামায়াত নেতা কাদের মোল্লার রায়কে কেন্দ্র করে তৈরি হওয়া নাস্তিকদের সংগঠন গণজাগরণ মঞ্চকে মাঠে থাকতে হয়েছে দীর্ঘদিন। ২০১৫ সালের নির্বাচন ও নির্বাচন পরবর্তী সময়ের পরিস্থিতিতেও অনেকটা বাধ্য হয়ে রাজপথে থাকতে হয়েছিল গণজাগরণ মঞ্চ নামের সংগঠনটিকে। আর তাদের রাজপথে রেখে সুফল ভোগ করেছিল খোদ আওয়ামী লীগ।

তখনকার ঘটনা পর্যবেক্ষণ করতে গিয়ে আমরা দেখি, ২০১৩ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি জামায়াত নেতা কাদের মোল্লার ফাঁসির দাবিতে রাজপথে আসে গণজাগরণ মঞ্চ। প্রথম এক সপ্তাহ খুব জমজমাট থাকলেও ধীরে ধীরে নিষ্ক্রিয় হতে থাকে সংগঠনটি। কমতে থাকে তাদের উপস্থিতি। হঠাৎ আবার সক্রিয় হতে হয় সংগঠনটিকে, তবে বাধ্য হয়ে। যার কারণ ছিল খুবই লোমহর্ষক। গণজাগরণ মঞ্চকে হারাতে হয় তাদের অন্যতম উদ্যোক্তা ব্লগার রাজিব হায়দার ওরফে থাবা বাবাকে। রাজিব দিয়ে শুরু হলেও এরপর একের পর এক চলতে থাকে বাম নিধন আর বাধ্য হয়ে রাজপথে থাকতে হয় গণজাগরণ মঞ্চসহ বাম সংগঠনগুলোকে। আর তাদের ইস্যু করে পুরো তিন বছর সুফল ভোগ করে ক্ষমতাকেই পাকাপোক্ত করে আওয়ামী লীগ।

মজার বিষয় হলো দুই বছরের বেশি সময় বামদের এই মঞ্চকে রাষ্ট্রীয়ভাবে পৃষ্ঠপোষকতা করা হলেও কোনো একদিন তাদের তুলে দেয়া হয় পিটিয়ে। কারণ তখন তাদের আর কোনো প্রয়োজনীয়তা ছিল না সরকারের। এরপর থেকে আর প্রাণ পায়নি সংগঠনটি, তারও কিছু কারণ রয়েছে। সেটা হলো, বিগত সময়ে মঞ্চের অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা উপস্থিত হয়ে সহযোগিতা করলেও পরবর্তিতে সহযোগিতার পরিবর্তে উল্টো হামলা চালায়। খাবার থেকে টয়লেট সেবা পর্যন্ত ফ্রি দেয়ার বিপরিতে দাঁড়াতে গেলেই ঝোটে টিয়ার গ্যাস, লাঠিচার্জ, পিটুনি ইত্যাদি।

যখন গণজাগরণ মঞ্চের ওপর সরকারের এমন বৈরি আচরণ শুরু হয়েছিল তখনি অনেক বাম নেতাকে বলতে দেখা গেছে, ‘সরকারের প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়ে গেছে, তাই এখন আমাদের পিটিয়ে তাড়িয়ে দিচ্ছে’।

শনিবার দেশের বাম ও নাস্তিকদের আধ্যাত্মিক গুরু অধ্যাপক ড. জাফর ইকবালের ওপর হামলার খবর শুনে আমি বিস্মিত হই। মনের মধ্যে প্রশ্ন আসে জাফর ইকবালের ওপর হামলা হলে কে বেশি লাভবান হবে? এরপর থেকে সারা দিন-রাত এ ঘটনা নিয়ে স্টাডি করি। পূর্বের ঘটনাগুলোর সঙ্গে মিলানোরও চেষ্টা করি। একটু খেয়াল করতেই বেরিয়ে আসে সহজ সমাধান। জ্ঞান বলে দেয়, জাফর ইকবালের ওপর হামলায় লাভবান হচ্ছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। তাছাড়া নির্বাচন আসন্ন, এখন এমন গঠনা ঘটানো আওয়ামী লীগের জন্য অস্বাভাবিক কিছু না।

প্রশ্ন আসতে পারে, কি ভেবে বলছেন? জাফর ইকবালের ওপর হামলায় আওয়ামী লীগ লাভবান বা তারা জড়িত। অবশ্যই জবাব আছে,

১। জাফর ইকবাল দেশের তারুণদের বড় একটি অংশের কাছে জনপ্রিয়। তাই তার ওপর হামলা চালিয়ে বিরোধীদের প্রতি দোষ চাপিয়ে জাফর ইকবাল ভক্তদের কাছে টানার চেষ্টা করা।

২। জাফর ইকবালের ওপর হামলার ঘটনাকে টাইমলাইনে এনে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি আড়াল করা। মিডিয়া এবং জনগণের চোখ ভিন্ন দিকে ফিরিয়ে নেয়া।

৩। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ রয়েছে বলে প্রচার করে বিশ্বব্যাপী আলোচনায় থাকার চেষ্টা করা এবং ঘটনার বিচারের নাম করে বিশ্বব্যাপী নিজেদের বাম সমর্থীত সরকার প্রমাণ করার মাধ্যমে ফায়দা হাসিল করা।

৪। সর্বপরি কোনোভাবে বামদের রাজপথে নামিয়ে আরেকটি গণজাগরণ মঞ্চের আবির্ভাব ঘটানো এবং তাদের ব্যবহার করে আবারো ক্ষমতায় যাওয়ার চেষ্টা করা।

উপরে উল্লেখিত বিষয়গুলো নিয়ে একটু ভাবলেই দেখা যায় প্রতিটি ঘটনায়ই লাভবান হচ্ছে আওয়ামী লীগ। তার ওপর আমরা গণমাধ্যমের সংবাদে দেখেছি, হামলাকারী ফয়জুরের মামা ফজলুর রহমান আওয়ামী লীগের অঙ্গ সংগঠন কৃষক লীগের নেতা। তাছাড়া, যখন হামলা হয় তখন সরকারি পুলিশ বাহিনীকে দেখা গেছে নিষ্ক্রিয় ভূমিকায়। আর পুলিশ, ছাত্রলীগ ও বাম নেতাকর্মীদের ভেদ করে বহিরাগত একজন কিভাবেইবা গেল তার কাছে? হামলাকারীকে প্রোটেকশন দেয়া না হলে সে কোনোভাবেই ওই পর্যন্ত যেতে পারতো না।

আরেকটি বিষয় উল্লেখ্য যে, র‌্যাগিং নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করে গত কয়েকদিন ধরে সরকারী ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের বিরাগভাজন ছিলেন ড. জাফর ইকবাল। তাই এক ঢিলে দুই পাখি মারলো তারা। একদিকে প্রতিশোধ নেয়া হল অন্যদিকে দেশ ও বিশ্বব্যাপী ফায়দা হাসিলও হল চমৎকারভাবে। তাই চোখ বন্ধ করে বলা যায় জাফর ইকবালের ওপর হামলায় সবচেয়ে বেশি লাভবান আওয়ামী লীগ।

লেখক : সাহিত্যিক ও কলামিষ্ট

About banglamail

Check Also

মহিলা ক্রিকেট দলের শিরোপা জয় উদযাপন করলো জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা।।(ভিডিও সহ)

মহিলা ক্রিকেট দলের শিরোপা জয় উদযাপন করলো জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা।।(ভিডিও সহ) Related