Monday , June 18 2018
Home / পাঠক কলাম / মসজিদে জুতা পায়ে প্রবেশ করা গেলে শহীদ মিনারে কেন ন​য় ?

মসজিদে জুতা পায়ে প্রবেশ করা গেলে শহীদ মিনারে কেন ন​য় ?

মিনারের মূল চত্বরকে এখন বলা হচ্ছে ‘বেদী’। মন্দিরের বেদীর মত, যেখানে পুজার অর্ঘ দেয়া হয়।

মন্দিরের মতই শহীদ মিনারের ‘পবিত্র’তা ধারণা তৈরী করা হয়েছে।

ব্যক্তি পরিচ্ছন্যতা রক্ষা করতে আপনি যদি অপরিচ্ছন্য শহীদ মিনারে পরিচ্ছন্য জুতা পায়েও হাঁটেন, তাহলেও নাকি শহীদ মিনারের পবিত্রতা নষ্ট হয়!

আমার এক বড় ভাই অনেকদিন যাবতই লিখে আসছেন যে, বাংলাদেশের সেক্যুলাররা আসলে পৌত্তলিক। এরা সেক্যুলারিজম বলতে আসলে বোঝান পৌত্তলিকতার প্রসার। এরা পুজা-অর্চনায় কোন ধর্মীয় গন্ধ পান না, কেবল মাথায় টুপি আর হিজাব দেখলেই এদের সেক্যুলার মৌলবাদ চেগিয়ে ওঠে। মসজিদের ভেতরে ময়লা বুট পরিহিত পুলিশ ঢুকে নামাজ আদায়রত মুসল্লিদের পেটালে এদের কোন আপত্তি থাকে না, এদের আপত্তি হয় শহীদ মিনারের মূল চত্বরে (যেটাকে এখন এরা বলে ‘শহীদ বেদী’) খালি পায়ে দাঁড়ালে!

শহীদ মিনার যেখানে অবস্থিত, সেখানে কোন কবর নেই, সেখানে কোন মন্দির নেই। তাহলে ওটাকে পবিত্র ঘোষণা করছেন কেন? আপনারা না সেক্যুলার! তাহলে সেই ধর্মনিরপেক্ষ অবস্থানে থেকে কিভাবে আপনারা পবিত্রতার মত ধর্মীয় লাল শালু দিয়ে শহীদ মিনারকে মোড়াতে চাইছেন? পবিত্রতা কনসেপ্টটা একান্তই পৌত্তলিক বলে যেটা-সেটাকে পবিত্র ঘোষণা করতে আপনাদের এত আগ্রহ!

পৌত্তলিক পবিত্রতা কনসেপ্টটা যে কত খেলো, সেটা কয়েকটা উদাহরণ দিলেই বুঝতে পারবেন। পৌত্তলিকদের একটা অংশ মনে করে- গরু একটা পবিত্র প্রানী। সেই গরুর অপরিচ্ছন্য মল-মূত্রকেও তারা পবিত্র মনে করে। এখানেই পরিচ্ছন্যতার সাথে পৌত্তলিক পবিত্রতার বিরোধ।

পবিত্র জায়গায় আপনি জুতা পায়ে যেতে পারবেন না, পাখির পায়খানা আর উচ্ছিস্ট ফুল-প্রসাদের ছড়াছড়িতে মন্দিরটা যতই অপরিচ্ছন্য হোক না কেন, আপনাকে সেখানে জুতা খুলে খালি পায়েই যেতে হবে। তা না হলে মন্দিরের পবিত্রতা নষ্ট হবে।

আরেকটু উঁচু দরের পবিত্রতা যদি হয়, যেমন মন্দিরের বেদী (যেখানে অর্ঘ দেয়া হয়); তাহলে সেখানে আপনি খালি পায়েও যেতে পারবেন না। তাতেও বেদীর পবিত্রতা নষ্ট হবে!

পবিত্র মানবরাও আছেন। ধর্মীয় যাজকরা। তারা বছরের পর বছর গোসল না করে চুলে জটা ধরিয়ে ফেলেও ‘পবিত্র’! কিন্তু আপনি নীচু জাতের বা ভিন্ন ধর্মের লোক হলে যত পরিচ্ছন্যই হোন না কেন, ঐ পবিত্র মানবকে স্পর্শ করার সাথে সাথে তার পবিত্রতা নষ্ট হয়ে যাবে! তাকে ময়লা গঙ্গাজল দিয়ে হলেও স্নান করে পুনরায় ‘পবিত্র’ হতে হবে!

উপমহাদেশের এই পৌত্তলিকতা যে মুসলমানদের ভেতরে কতটা গভীরভাবে গেড়ে বসেছে তার উদাহরণ হচ্ছে- অনেক মুসলমানই মনে করেন মসজিদে জুতা নিয়ে প্রবেশ করলে মসজিদের পবিত্রতা নষ্ট হয়!

মসজিদ কেন? খোদ কাবা ঘরের ভেতরেও জুতা নিয়ে প্রবেশ করা যায়, যদি সেটা পরিচ্ছন্য হয়। ইসলাম ধর্মের প্রচারক নবী করিম মোহাম্মদ (স:) নিজেও অনেক সময় জুতা পায় মসজিদে নামাজে ইমামতি করেছেন। জুতা অপরিচ্ছন্য থাকলে সেটা খুলে মসজিদে প্রবেশ করতে হয়, যেন মসজিদ অপরিচ্ছন্য না হয় যায়। পরিচ্ছন্য জুতা পায়ে মসজিদে ঢুকলে মসজিদের পবিত্রতা নষ্ট হবার কোন কারণ নেই।

একুশের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনারে গিয়ে বেগম খালেদা জিয়াসহ কয়েকজন বিএনপির নেতা শহীদ মিনারের মূল চত্বরে উঠেছিলেন। ছবিতে দেখলাম তাদের পায়ে কোন জুতাও ছিল না। কিন্তু এতেই নাকি শহীদ মিনারের ‘পবিত্র’তা নষ্ট হয়ে গেছে! বাংলাদেশের স‌েক্যুলার পুরুত ঠাকুর আর তাদের সেবাইতরা যেভাবে চেচামেচি করছে, তাতে মনে হচ্ছে- গঙ্গা থেকে জল এনে তা দিয়ে শহীদ মিনারের বেদি ধুয়ে, গোবর দিয়ে লেপে এখন ঐ জায়গাকে পবিত্র করতে হবে!””

wahiduzzaman

About banglamail

Check Also

অাসুন স্যাটেলাইট খাই !

স্যাটেলাইট বানিয়েছে কারা? – ফ্রান্সের কোম্পানি উৎক্ষেপন করছে কারা? -অামেরিকা অরবিট ভাড়া দিয়েছে কারা? -রাশিয়ার …