Sunday , May 27 2018
Home / আলোচিত সংবাদ / নিজের শিক্ষককে লাঞ্চিত করলেন আওয়ামী লীগ এর – এম পি কমল

নিজের শিক্ষককে লাঞ্চিত করলেন আওয়ামী লীগ এর – এম পি কমল

যে শিক্ষক হাতে ধরে অ-আ-ক-খ শিখিয়েছেন, সে শিক্ষককেই শত শত মানুষের সামনে গলা ধাক্কা দিয়ে চরমভাবে লাঞ্চিত করলেন কক্সবাজার-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের সাইমুম সরওয়ার কমল। শারিরিকভাবেও লাঞ্চিত করার পাশাপাশি ঐ প্রবীণ শিক্ষককে ও তার ছেলেকে গুম করার হুমকিও দেন সাইমুম কমল।গত রোববার দুপুরে রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা এলাকায় জনসমক্ষে এ ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় সর্বত্র চারিদিকে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

সুনীল কুমার শর্মা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক ছিলেন। ২০১৪ সালে তিনি রামুর উত্তর কাহাতিয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক থাকাকালে অবসর নেন। বর্তমানে তিনি রামুর রত্নগর্ভা রিজিয়া আহমেদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করছেন।
সংসদ সদস্য কমলকে হাতে ধরে লেখাপড়া শিখিয়ে ছিলেন সুনীল শর্মা। শুধু তাকে নয়, তার সকল ভাই-বোনের লেখাপড়ার হাতেখড়িও এই সুনীল শর্মাই দিয়েছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, দুপুরে জোয়ারিয়ানালা বাজারের দক্ষিণে বিকেএসপির মাঠের উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন কমল। উদ্বোধন শেষে উপস্থিত সুনীল শর্মা দিকে এগিয়ে যান তিনি। সবাই ভেবেছিলো, নিজের শিক্ষক তাই সম্মান জানাতেই হয়তো তার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে সংসদ সদস্য কমল প্রবীণ ঐ শিক্ষককে তুই তোকারি সম্বোধনে অশ্রাব্য ভাষায় গালাগাল করতে থাকেন। এই সময় শিক্ষক সুনীল শর্মা কমলকে স্মরণ করিয়ে দেন, তিনি তার শিক্ষক ছিলেন; এবং ‘তুই-তোকারি’ করে কথা বলার কারণ জানতে চান।

এতে আরও ক্ষেপে গিয়ে শিক্ষক সুনীল শর্মাকে টেনে-হিঁচড়ে গলা ধাক্কা দেন সংসদ সদস্য কমল। সুনীল শর্মার কলার চেপে ধরে বলেন, “তোর ছেলে সুজনকে সাবধান করবি। নইলে খবর আছে। না হলে তোদের সবাইকে গুম করে ফেলবো।”শিক্ষককে লাঞ্চিত করার সময় সেখানে শতশত মানুষ উপস্থিত থাকলেও এর প্রতিবাদে কেউই এগিয়ে আসেননি।জানা গেছে, সুনীল শর্মার ছেলে সুজন শর্মা ঢাকাস্থ রামু সমিতির সাধারণ সম্পাদক। ঢাকায় রামু সমিতির বার্ষিক উৎসব আগামী শুক্রবার। সমিতির কর্তৃত্ব নিয়ে সুজনের সঙ্গে সংসদ সদস্য কমলের বিরোধ চলছে।

কান্না জড়িত কণ্ঠে সুনীল কুমার শর্মা বলেন, “কমল আমার ছাত্র। ছোটবেলায় তাদের বাড়িতে গিয়ে সব ভাই-বোনকে পড়িয়েছি। সংসদ সদস্য হয়ে সে আমাকে অপমান করলো। ক্ষমতার দাপটে হয়তো সে তার নীতি নৈতিকতা হারিয়ে ফেলেছে।”এই ব্যাপারে সংসদ সদস্য কমলের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি।

সুত্র: যমুনা টিভি।

About banglamail71

Check Also

আমার কিছু হলে পরিবারটাকে দেখিয়েন: কোটা আন্দোলন নেতার আবেদন

আবারো মারধরের হুমকি দেয়া হয়েছে অভিযোগ করে কোটা আন্দোলনের নেতা ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের …