এমপির দাবিতে মেয়রের না

নারায়ণগঞ্জ শহরের ফুটপাতে হকার বসতে দিতে এমপি সেলিম ওসমানের লিখিত প্রস্তাবনার জবাবে সিটি করপোরেশন সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, শহরের ফুটপাতে কোনো হকার বসতে দেয়া হবে না। আর এর বিকল্প হিসেবে শহরের চারটি স্থানকে বিকল্প হিসেবে নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।রোববার এমপি সেলিম ওসমানের ওই চিঠি নগর ভবনে মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী কাছে পৌঁছে দেয়া হয়। পরে বিকেলে সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এহতেশামূল হক সাক্ষরিত চিঠি সেলিম ওসমানের কাছে পাঠানো হয়।চিঠিতে সেলিম ওসমান উল্লেখ করেন, শহরে বিদ্যমান অস্থিতিশীল পরিবেশ শান্ত করা এবং তাদের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে ১৩ জানুয়ারি বিকেল ৪টায় আমি নারায়ণগঞ্জ রাইফেল ক্লাবে তাদের সাথে আলোচনা করি। উক্ত আলোচনায় উপস্থিত কয়েক হাজার হকার বিকেল ৫টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ফুটপাতে দোকান বসানোর জন্য আমার কাছে জোরালো দাবি রাখে। সেই সাথে তারা জনগণের চলাচলে কোনো প্রকার বিঘ্ন না ঘটিয়ে শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করবে বলে ওয়াদা দিয়েছে ?আমি তাদেরকে সরাসরি কোনো প্রকার আশ্বাস না দিয়ে একজন ব্যবসায়ী হিসেবে তাদের বর্তমান দূরাবস্থার কথা মানবিক বিবেচনায় তাদের প্রস্তুাবিত দাবি বিকেল ৫টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত দোকান বসানোর বিষয়টি সিটি কর্পোরেশনের অনুমতি সাপেক্ষে আমার অনাপত্তির কথা জানাই, তবে তা অস্থায়ী হিসেবে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখ সময় পর্যন্ত।

তারা মেয়রের মাধ্যমে সকল জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাবৃন্দ একত্রে আলোচনা করে অন্যত্র পুনর্বাসনের মাধ্যমে একটি স্থায়ী সমাধানের দাবি রাখে। অতএব কয়েক হাজার হকারের বর্তমান দূরাবস্থার কথা বিবেচনা করে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিকেল ৫টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে ব্যবসা পরিচালনা করার হকারদের অস্থায়ী দাবীটি আপনার সুবিবেচনার জন্য প্রেরণ করছি।এমপি সেলিমকে দেয়া সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এহতেশামুল হক উল্লেখ করেন, নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার্স সমস্যা নিরসনে বিষয়টি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন সব সময়ে আন্তরিকতার সাথে বিবেচনা করে আসছে। তারই ধারবাহিকতায় ২০০৮ সালে চাষাঢ়ায় ৫০ শতাংশ জায়গার ওপর একটি হকার্স মার্কেট নির্মাণ করে সেখানে ৬৫৮ জন হকারকে দোকান দিয়ে পুনর্বাসন করা হয়। পুনর্বাসিত জায়গায় হকারগণ ব্যবসা পরিচালনা না করে শহরজুড়ে ফুটপাতের সম্পূর্ণ অংশ এবং রাস্তার বেশ কিছু অংশ দখল করে ব্যবসা করছে। ফলে জনসাধারণের ফুটপাত দিয়ে নির্বিঘ্নে চলাচল প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সুতরাং সার্বিক পর্যালোচনায় ফুটপাত দিয়ে জনসাধারণের নির্বিঘ্নে চলাচল ও যানমালের নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে হকারদের ফুটপাতে ব্যবসা পরিচালনা করার সুযোগ দেয়া সম্ভব না। এ অবস্থায় আপনার মানবিক উদ্যোগের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়ে আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ওসমানী পৌর স্টেডিয়ামের বর্ধিতাংশ, জামতলা ঈদ গাঁ মাঠ, নগর ভবনের সামনের অংশ ও নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের পেছনে রাজউকের কার পার্কিংয়ের জায়গায় প্রতিদিন বিকেল ৫টা হতে রাত ৯টা পর্যন্ত হকার বসানোর বিষয়ে নির্দেশক্রম সম্মতি জ্ঞাপন করা হলো।

Comments Us On Facebook: