Monday , July 16 2018
Home / আলোচিত সংবাদ / শিক্ষার্থীদের খুলি উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি!আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ এম মকবুল হোসেন।

শিক্ষার্থীদের খুলি উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি!আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ এম মকবুল হোসেন।

বছর বছর বেতন বৃদ্ধি বন্ধসহ আট দফা দাবিতে আন্দোলনে নামেন বেসরকারি এম এইচ শমরিতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের শিক্ষার্থীরা। আজ সকালে এই বেসরকারি মেডিকেল কলেজ শিক্ষার্থীরা হাসপাতালের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছিলেন।এতে ক্ষিপ্ত হয়ে শিক্ষার্থীদের খুলি উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন এম এইচ শমরিতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান,আওয়ামী লীগের সাবেক সাংসদ এম মকবুল হোসেন।আজ রোববার সকালে এই ঘটনা ঘটে।প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা বলেন, আট দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা আজ সকাল আটটা থেকে হাসপাতালের সামনে অবস্থান করছিলেন। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে আসেন হাসপাতালের চেয়ারম্যান এম মকবুল হোসেন। তিনি পুলিশকে পাশে রেখে আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীদের অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন।

মকবুল বলেন, ধর্মঘট করলে তাঁর কোনো সমস্যা হবে না। বেশ কটি মেডিকেল কলেজ বন্ধ হয়ে গেছে। তিনিও বন্ধ করে দেবেন।মকবুল বলেন, আমার সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছে সরকার। যারা ইতরামি করবে, খুলি উড়াইয়া দেবে।শমরিতা মেডিকেল কলেজের বিদেশি এক ছাত্রীকে উদ্দেশ করেও হুমকি দেন মকবুল।তবে শিক্ষার্থীরা মকবুলের হুমকিতে পিছু হটেননি। তাঁরা শমরিতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের কর্তৃপক্ষকে ভেতরে রেখে বাইরে থেকে তালা মেরে দেন।বেলা পৌনে দুইটার দিকে শমরিতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান বেরিয়ে এসে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেন।
উল্লেখ্য, প্রতি বছর বেতন বাড়ানো বন্ধসহ আট দফা দাবিতে বিক্ষোভ করে এম এইচ শমরিতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের শিক্ষার্থীরা।আজ সকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে কলেজ ক্যাম্পাসের সামনের রাস্তায় এই বিক্ষোভ করে তারা। পরে ঘটনাস্থলে আসেন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ও সাবেক সাংসদ এম মকবুল হোসেন। এসময় শমরিতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের কর্তৃপক্ষকে ভেতরে রেখে বাইরে থেকে তালা মেরে দেয়া হয়। পরে বেলা পৌনে দুইটার দিকে শমরিতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান বেরিয়ে এসে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেন।প্রসঙ্গত, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপন ও পরিচালনা আইন দ্রুত মন্ত্রিসভায় উপস্থাপন করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।গত মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর,২০১৭) সচিবালয়ে বাংলাদেশ মেডিকেল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) কর্মকর্তাদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় তিনি সভাপতির বক্তৃতায় এ নির্দেশ দেন।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, বেসরকারি মেডিকেল কলেজ নীতিমালা অনুসরণে প্রায় ক্ষেত্রে বিচ্যুতি দেখা যাচ্ছে। শুধু নীতিমালা প্রয়োগ করে কলেজ পরিচালনায় সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা কঠিন হয়ে পড়ে বলে এ জন্য আইন প্রণয়ন প্রয়োজন। এই আইনের খসড়া চূড়ান্ত করে দ্রুত তা মন্ত্রিসভায় অনুমোদন ও সংসদে উপস্থাপনের উদ্যোগ নিতে হবে।

বিএমডিসির যথাযথ অনুমোদন না নিয়ে বাংলাদেশে দীর্ঘদিন অবস্থান করে বিদেশী চিকিৎসকরা চিকিৎসা পেশায় নিয়োজিত থাকেন উল্লেখ করে তিনি বিদেশী চিকিৎসকদের কাজ করার অনুমতি প্রদানের নীতিমালা কঠোরভাবে অনুসরণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।সভায় অন্যান্যের মাঝে বিএমডিসির সভাপতি অধ্যাপক ডা. সহিদুল্লাসহ মন্ত্রণালয় ও বিএমডিসির ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

About editor

Check Also

এমন একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশ ছিল পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী দেশ।

এমন একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশ ছিল পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী দেশ। ১৭৫৭ সালে নবাব সিরাজদ্দৌলার …