লাদেন গ্রুপের মালিকানা নিয়ে নিচ্ছে সৌদি রাজ পরিবার

সৌদি আরবের সবচেয়ে বড় নির্মাণ প্রতিষ্ঠান সৌদি বিন লাদেন গ্রুপের ব্যবস্থাপনার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিচ্ছে রাজ পরিবার। এ ছাড়া প্রতিষ্ঠানটির সম্পত্তির কিছু অংশ বাজেয়াপ্ত করার সিদ্ধান্তও বিবেচনাধীন আছে। অভ্যন্তরীণ সূত্রের বরাত দিয়ে এমন সংবাদ প্রকাশ করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।বিন লাদেন কোম্পানির প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন আল কায়দা প্রধান ওসামা বিন লাদেনের বাবা মোহাম্মদ বিন লাদেন। কোম্পানিটির বর্তমান চেয়ারম্যান বকর বিন লাদেনও ওসামা বিন লাদেনের সৎভাই।সৌদি বিন লাদেন গ্রুপ সৌদি আরবের সবচেয়ে বড় এবং প্রভাবশালী নির্মাণ প্রতিষ্ঠান। পবিত্র কাবা শরিফের সংস্কার, পরিবর্ধন থেকে শুরু করে সৌদি আরবের অধিকাংশ বৃহৎ উন্নয়নমূলক প্রকল্পেই এ প্রতিষ্ঠানটি জড়িত। বর্তমানে তাদের উল্লেখযোগ্য প্রকল্পগুলোর মধ্যে আছে ১২৩ কোটি মার্কিন ডলার চুক্তির বিনিময়ে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবন, জেদ্দা টাওয়ার নির্মাণ। সৌদি আরব ছাড়াও কাতার, আরব আমিরাত, মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রে কোম্পানিটির বিভিন্ন প্রকল্প চলমান আছে।

সৌদি আরবের রাজপরিবারের সঙ্গে বিন লাদেন গ্রুপের সম্পর্ক বেশ ভালো ছিল। কিন্তু ২০১৫ সালে পবিত্র হারাম শরিফের সংস্কার কার্যক্রম চলাকালে কোম্পানিটির একটি ক্রেন ধসে ১০৭ জন নিহত হওয়ার পর থেকে কোম্পানিটি সরকারি চাপের মুখে পড়ে। ওই ঘটনার পর থেকে কোম্পানিটি নতুন কোনো সরকারি প্রকল্প পায়নি। ফলে তাদের অর্থনৈতিকভাবে কিছুটা ক্ষতিগ্রস্ত হতে হয় এবং কয়েক হাজার কর্মীকে ছাঁটাই করতে বাধ্য হয়। গত ৪ নভেম্বর সৌদি আরবের যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশে সৌদি রাজপরিবারের একাধিক রাজপুত্র এবং ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে যে কথিত দুর্নীতিবিরোধী অভিযান চালানো হয়, তাতে সৌদি বিন লাদেন গ্রুপের চেয়ারম্যান বকর বিন লাদেনসহ লাদেন পরিবারের আরও কিছু সদস্যকেও গ্রেফতার করা হয়েছিল।

সূত্রের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, তাদের মুক্তির ব্যাপারে সরকারের সঙ্গে দেনদরবার চলছে। মুক্তির জন্য তাদেরকে বিপুল পরিমাণ অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দিতে হতে পারে, অথবা বিন লাদেন কোম্পানির কাছে সৌদি সরকারের যে ৩০ বিলিয়ন ডলার দেনা আছে, তা থেকে বড় একটি অংশ ছাড় দিতে হতে পারে।বিন লাদেন পরিবারের সদস্যদের গ্রেফতারের পরপরই সৌদি আরবের অর্থ মন্ত্রণালয় কোম্পানিটির ব্যবসা দেখাশোনার জন্য পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি তৈরি করেছিল, যাদের মধ্যে তিনজন সরকারি প্রতিনিধি, আর বাকি দু’জন বিন লাদেন পরিবারের সদস্য। কোম্পানিটির মূল মালিকানা এখনও বিন লাদেন পরিবারের হাতে । কিন্তু সরকারের সঙ্গে আলোচনার পরই তাদের ভবিষ্যৎ নির্ধারিত হবে।

Comments Us On Facebook: