ফেসবুকে কুরআন অবমাননাকারীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় কোরআন শরিফ অবমাননা করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেয়া হাসান-উল ইসলামকে (২৯) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।স্থানীয় মুসল্লিদের তীব্র বিক্ষোভের মুখে শনিবার সকালে ফতুল্লার মেঘনাঘাট এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ফতুল্লা মডেল থানার ওসি কামাল উদ্দিন (পিপিএম) গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।হাসান-উল ইসলাম ফতুল্লার পূর্ব দেলপাড়া এলাকার মজিবুর রহমানের ছেলে।
ওসি কামাল উদ্দিন জানান, মেঘনাঘাট এলাকা থেকে হাসান-উল ইসলামকে গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। পরে বিস্তারিত জানানো হবে।
সম্প্রতি হাসান-উল ইসলাম তার নামে ফেসবুক পেইজে কুরআন শরীফ অবমাননা করে কয়েকটি ছবি পোস্ট করেন। ছবিটি ভাইরাল হয়ে গেলে তাকে গ্রেপ্তারের দাবিতে ফতুল্লার পূর্ব দেলপাড়ায় বিক্ষোভ সমাবেশ করেন কয়েক হাজার মানুষ।
শুক্রবার জুমা নামাযের পর কুতুবপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার মসজিদ থেকে কয়েক হাজার মুসুল্লি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে হাসানের বাড়ির সামনে অবস্থান করে। এ সময় ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল উদ্দিন ও চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু অভিযুক্ত হাসানুলকে গ্রেপ্তারের আশ্বাস দিলে বিক্ষুদ্ধ জনতা সেখান থেকে চলে আসেন। তবে তারা আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে কুরআন অবমাননাকারীকে গ্রেপ্তার করা না হলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন। এর পর হাসান-উল ইসলামের বড় ভাই হেদায়েত-উল ইসলামকে আটক করে পুলিশ।এলাকাবাসী জানান, মাছ মজিবুরের ৫ মেয়ে ও ২ ছেলের মধ্যে হাসান উল ইসলাম সবার ছোট। ছেলেমেয়ে প্রত্যেকেরই বিয়ে দেয়া হয়েছে। হাসান উল ইসলাম ২ বছর আগে একই এলাকায় বিয়ে করেছেন। কয়েক বছর ধরে মাদক সেবন করে উশৃংখল চলা ফেরা করে আসছে।

তাকে স্থানীয়রা মাদকাসক্ত হিসেবে চিনে। রূপগঞ্জে একটি ইটভাটা ও ফতুল্লায় প্রচুর পরিমাণের অর্থসম্পদ রয়েছে মাছ মজিবুরের। বাড়ির সামনে রয়েছে একটি মার্কেট।ফতুল্লা মডেল থানার ওসি কামাল উদ্দিন জানান, বিক্ষোভ সমাবেশে গিয়ে আমি লোকজনকে শান্ত করেছি। দ্রুত হাসান উল ইসলামকে আইনের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে। ঘটনার পর থেকে মাছ মজিবুরের পরিবারের লোকজন আত্মগোপনে রয়েছে। ঘটনা সম্পর্কে জানতে হাসানের বড় ভাই হেদায়েত উল ইসলামকে আটক করা হয়েছে। তার বাড়িতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Comments Us On Facebook: