Monday , July 16 2018
Home / নির্বাচন / ঢাকা উত্তর সিটিতে সম্ভাব্য ’হাই প্রোফাইল’ মেয়র পদপ্রার্থীরা

ঢাকা উত্তর সিটিতে সম্ভাব্য ’হাই প্রোফাইল’ মেয়র পদপ্রার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুর পর ওই আসনের উপনির্বাচনে প্রার্থী নিয়ে চলছে জনমহলে ব্যপক আলোচনা। এরই মাঝে শীর্ষস্থানীয় রাজনৈতিক দলগুলো তাদের প্রার্থী ঘোষণায় বিভিন্ন পদক্ষেপও নিয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থী চূড়ান্ত মনোনয়ন না পেলেও চলছে মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীদের ব্যক্তিগত প্রচারণা। নির্বাচন কমিশনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারী অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ঢাকা সিটি উত্তরের উপ-নির্বাচনে সম্ভব্য মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা এখন নগরবাসীর আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আসন্ন উপনির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের টিকেট পেতে মাঠে জনসংযোগ করছেন ব্যবসায়ী নেতা আতিকুল ইসলাম। অন্যদিকে বিএনপির কাউকে প্রকাশ্যে মাঠে দেখা না গেলেও দলটির নেতারা বলছেন, তাবিথ আউয়ালকে দেওয়া হবে মেয়রের মনোনয়ন। অন্যদিকে ২০ দলের শরীক দল জমায়াতের পক্ষ থেকে মেয়র পদের টিকেট পেয়ে মাঠে জনসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছে সাবেক ছাত্র নেতা সেলিম উদ্দিন। এ ছাড়া মেয়র পদে বড় দুই দলের মনোনয়ন পাওয়ার চেষ্টায় রয়েছেন অনেকে, আছেন অন্য প্রার্থীরাও।

উপনির্বাচনে মেয়র পদের প্রার্থী বাছাই নিয়ে বড় দুই রাজনৈতিক শিবিরে চলছে জোর আলোচনা। আর এ আলোচনায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ থেকে নৌকার প্রার্থী হিসেবে সবচেয়ে আলোচিত নাম তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইর সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলামের। দল থেকে সবুজ সংকেত পেয়ে এরই মধ্যে মাঠে নেমে পড়েছেন এই ব্যবসায়ী নেতা।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘গ্রিন সিগন্যাল পেয়েছি বলেই তো মাঠে আছি। অবশ্যই আমি সবার সাথে মতবিনিময় করছি। আমি আমার নিজেকে যাচাই করছি। দল যদি চান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী চান এটা উনাদের ইচ্ছে। যদি আমাকে না দেন, অন্য কাউকে দেন। অবশ্যই আমি তাঁর সাথে থাকব ইনশা আল্লাহ।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘ তাঁর (তাবিথ আউয়াল) তো একটা ভালো পরিচিতি আছে ওই এলাকায়। স্বাভাবিকভাবেই তাঁর একটা অগ্রাধিকার থাকার কথা। এটা এখন দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমরা আশা করছি, এবারে উত্তরে গত বারের মতো ১২টা, ১টায় ভোট শেষ করে চলে যাওয়া এটা আমাদের ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। উই মেড মিসটেক লাস্ট টাইম (গতবার আমরা ভুল করেছি)। এবার তা না, একেবারে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত আমরা থাকবো।’

এদিকে, প্রথম বারের মতো জামায়াত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে মনোয়ন দিয়েছে মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিনকে। সেলিম উদ্দিন ঢাকা মহানগর উত্তর জামায়াতের আমীরের দায়িত্ব পালন করছে। যুদ্ধাপরাধী ইস্যু নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে কোনঠাশা হয়ে আছে দলটি, প্রকাশ্যে কোন কর্মসূচী করতে দেখা না গেলেও গোপনে দলটির সাংগঠনিক কার্যক্রম খুব শক্তিশালী। নির্বাচন বিশ্লেষকরা এটিকে রাজনীতিতে নতুন চমক ‍হিসেবে দেখছে।

এ ছাড়া উত্তর সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হিসেবে সম্ভাব্য আলোচনায় রয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা সাবের হোসেন চৌধুরী, ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম রহমত উল্লাহ, বিএনপি নেতা অবসরপ্রাপ্ত মেজর কামরুল ইসলাম, সিপিবির আব্দুল্লাহ আল কাফি, গণসংহতি আন্দোলনের জোনায়েদ সাকী, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, ব্যান্ড শিল্পী শাফিন আহমেদসহ অনেকেই।

উল্লেখ্য, গত ৩০ নভেম্বর ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যু হয়। এরপর ৪ ডিসেম্বর মেয়রের পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়। ফলে ৯০ দিনের মধ্যে আরেকটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাধকতা তৈরি হয়েছে। সে অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন থেকে আসে উপনির্বাচনের ঘোষণা।সব ঠিক থাকলে ২৬ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন। আর তফসিল ঘোষণা করা হবে আগামী ৯ জানুয়ারি। একই সাথে ঢাকা উত্তরের ১৮টি ওয়ার্ড এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনএর ১৮টি ওয়ার্ডের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

About banglamail

Check Also

পাগলেও জানে আওয়ামীলীগ কথা দিয়ে কথা রাখে না।।(ভিডিও সহ)

পাগলেও জানে আওয়ামীলীগ কথা দিয়ে কথা রাখে না।।(ভিডিও সহ) পাগলেও জানে আওয়ামীলীগ কথা দিয়ে কথা …