সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জোরালো প্রচারণা চালাচ্ছে জামায়াত ইসলামী!

নির্বাচনের দিন ঠিক হয়নি, আলোচনা হয়নি বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটেও। তবু এরইমধ্যে সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী চূড়ান্ত করে কার্যক্রম শুরু করেছে জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামী। দলের মহানগর আমির ও কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের প্রার্থী হিসেবে ইতোমধ্যে প্রচারণা শুরু করেছেন।

সিলেট সিটি করপোরেশন ও জামায়াতের লোগোদলের নিবন্ধন স্থগিত ও প্রতীক বাতিল থাকলেও প্রার্থী হিসেবে এহসানুল মাহবুব নির্বাচনি প্রচারণা শুরু করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, ২০১৮ সালের শুরুর দিকেই অনুষ্ঠিত হবে সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন।সিলেটের জামায়াত নেতারা বলছেন, ‘মেয়র প্রার্থী হিসেবে দলীয় প্রার্থী কাজ শুরু করলেও শেষ পর্যন্ত জোটগতভাবে নির্বাচন হবে। ফলে এখনই চূড়ান্ত কিছু বলার সময় আসেনি।

এ নিয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটেও রয়েছে অস্বস্তি। কারণ হিসেবে দলটির সিলেটের নেতাদের কেউ কেউ বলছেন, ‘মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী দল থেকে পুনরায় মনোনয়ন পাবেন এটা প্রায় নিশ্চিত। যদিও তাকে অনেক বাধার মুখোমুখি হতে হবে।২০ দলীয় জোটের সমাবেশে বক্তব্য রাখছেন অ্যাডভোকেট এহসানুল মাহবুব জুবায়ের তবে এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেন, মেয়র নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। অনেক দিকেই প্রস্তুতি নিতে হয়। চেষ্টা চলছে। গণসংযোগ চলছে, মতবিনিময় চলছে। অন্যান্য যে বিষয়গুলো আছে, সেগুলোও চলছে।’

জোটের সমর্থন না পেলে আলাদাভাবে করবেন কিনা, এমন প্রশ্নে এহসানুল মাহবুব জুবায়ের বলেন, ‘জোট হচ্ছে জাতীয় নির্বাচনের জন্য। স্থানীয় নির্বাচনে জোটগত হয় না। শুধু জাতীয় নির্বাচন হবে, তখন জোটভিত্তিকই হবে।

এ প্রসঙ্গে এহসানুল মাহবুব জুবায়ের আরও বলেন, ‘স্থানীয় নির্বাচন আগেও আমরা আলাদা আলাদা করেছি। ইউনিয়ন ও উপজেলা নির্বাচনে তো আমরা আলাদা করেছি। জোটভিত্তিক হলে আমরা আশা করব, আমরাই পাব। সিলেট মহানগরের আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়ের জোটগতভাবে মনোনয়নের প্রত্যাশা করলেও সিলেট জেলা দক্ষিণের আমির মাওলানা হাবিবুর রহমান বলছেন, ‘নির্বাচন হলে, জোটগতভাবেই হবে। বাকিটা ভবিষ্যৎ তো আল্লাহ তায়ালা বলতে পারবেন। তবে কোনও সমস্যা হবে বলে মনে করি না। শেষ পর্যন্ত একটা সমাধান হবে আশা করি।’

বিষয়টি নিয়ে সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার ব্যক্তিগত সহকারি মোবাইলে জানান, মেয়র ব্যস্ত রয়েছেন।

জানতে চাইলে বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কলিমউদ্দিন আহমেদ মিলন বলেন, ‘সিলেটে মেয়র প্রার্থী কে হবেন, এটা নিয়ে আমাদের দলের চেয়ারপারসন সিদ্ধান্ত নেবেন। ওনার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত।

Comments Us On Facebook: