এবার হাসপাতালেও চেতনা ব্যবসা !

নামে হাসপাতাল, কিন্তু খরচের হিসেবে যেন বিলাসবহুল হোটেল। রাজধানীসহ সারাদেশে বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসাসেবা প্রদানের নামে চলছে উচ্চ মুনাফার ব্যবসা। সরকারের কোনো নজরদারি না থাকায় ফুলে-ফেঁপে উঠছেন এই চিকিৎসা ব্যবসায়ীরা। কম বিনিয়োগে উচ্চ মুনাফার হাতছানি; তাই ক্রমেই বাড়ছে বেসরকারি হাসপাতালের সংখ্যা। অন্যদিকে বেশী আয়ের লোভে ডাক্তাররাও ঝুঁকছেন বেসরকারি হাসপাতালের দিকে।

বিনিয়োগের টাকা তুলতে এবং অতিরিক্ত মুনাফা অর্জন করতে বেসরকারি হাসপাতালগুলো নানা অসুদপায় অবলম্বন করছে যার প্রভাব পড়ছে সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসামানেও।বেসরকারি হাসপাতালের পুঁজিচক্রের মধ্যে পড়ে সরকারি হাঁসপাতালগুলোতে সৃষ্টি হচ্ছে দুর্নীতিপরায়ণ কর্মকর্তা-কর্মচারীর সিন্ডিকেট। এসব দুর্নীতিগ্রস্থ সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সরকারি হাসপাতালগুলোতে এমন পরিস্থতি সৃষ্টি করছেন যাতে রোগীরা বাধ্য হয় বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে। যে সেবা সরকারি হাসপাতালেই আছে, সে সেবা বেসরকারি হাসপাতালে নিতে মোটা অংকের গুনতে হচ্ছে জনসাধারণের।

সরকারি-বেসরকারি হাসাপাতালের কর্তৃপক্ষের যোগসাজশে তৈরি হচ্ছে এমন এক চক্র যারা রোগী ভাগিয়ে আনা, সরকারি হাসপাতালের নানা যন্ত্রপাতিকে বিকল রাখা, কৃত্রিম সিট সংকট তৈরি করে রাখাসহ নানা অনৈতিক প্রক্রিয়ায় জড়িয়ে আছে। এ সবকিছুর পেছনে বেসরকারি হাসপাতালের মুনাফা অর্জনের লোভ মূল অনুঘটক হিসেবে কাজ করছে বলে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নীতি নির্ধারকরা মনে করছেন। এবার তার সাথে যোগ হ​য়েছে চেতনা ব্যবসা। স্বাধীনতার স্বপক্ষের একমাত্র হাসপাতাল নাম দিয়ে প্রচারনা চালাচ্ছে ফাস্ট কেয়ার হাসপাতাল

Comments Us On Facebook: