Thursday , October 18 2018
Home / পাঠক কলাম / কাজিন নূর তামিমি – এক ফিলিস্তিনি যোদ্ধা

কাজিন নূর তামিমি – এক ফিলিস্তিনি যোদ্ধা

যারাই ফিলিস্তিনের ঘটনা ফলো করেন সবাই এখন আহেদ তামিমির নাম জানেন। আহেদের বয়স ১৬। গত সোমবার ইসরায়েলি সেনাকে নিজ বাসার ফ্রন্ট ইয়ার্ডে চড় মারার অপরাধে আহাদকে রাতের গভীরে ঘুম থেকে উঠিয়ে গ্রেফতার করেছে ইসরায়েলী সেনারা, আর পরেরদিন তার মা নারিমান তামিমি পুলিশ স্টেশানে আহেদের ব্যাপারে খোজ নিতে গেলে তাকেও গ্রেফতার করেছে ইসরায়েলি অথোরিটি।

আহাদ এর সাথে একই রাতে গ্রেফতার হয়েছে, তার মেয়ে কাজিন নূর তামিমি, বয়স ২০ । আহাদের বাবা বাসেম জানিয়েছেন আহাদের রাগের কারন ছিল সেদিন ইসরায়েলি সেনারা তার ১৫ বছর বয়সী কাজিন মুহাম্মদকে মাত্র কয়েক মিটার দূরত্ব থেকে মাথা লক্ষ্য করে গুলি করে কোমায় পাঠানোর ঘটনা। সেই ছেলে এখন মৃত্যুর সাথে লড়ছে। আর মুহম্মদের দোষ ছিল সে তাদের গ্রাম নাবিহ সালেহের রাস্তায় পেট্রোলরত ইসরায়েলি সেনাদের দিকে পাথর ছুড়েছিল। পাথরের বদলে বুলেট ইজ ইসরায়েলী জাস্টিস।

কিন্তু কেন এত রাগ তামিমিদের, নাবি সালেহ গ্রামের মুসলিমদের ইসরায়েলি অথোরিটির উপর? বিগত কয়েক বছরে নাবি সালেহ গ্রামের প্রচুর ভুমি হালামিশ সেটেলাদের (ইহুদি সেটেলার) কে ইসরায়েলি অথোরিটি দিয়ে দিয়েছে, সেটেলারদের জন্য বাড়িঘর বানিয়ে দিয়েছে অথোরিটি। কিন্তু একই সময় এই গ্রামে অন্য কাউকে কোন বাড়িঘর বানানোর অনুমতি দেয়া হয় নাই। উল্লেখ্য এই অঞ্চল পুরাটাই ইসরায়েলই কন্ট্রোলের আওতায়। আর তাদের ছত্র ছায়ায় থেকে সেটেলাররা একে একে গ্রামের বিভিন্ন জায়গা দখল করে নিচ্ছে। আজ পর্যন্ত এই দখলের ধারা অব্যাহত আছে।

প্রায় জন্ম থেকেই আহাদেরা দেখছে তাদের অস্তিত্ব কিভাবে হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে। তারা আজ আর এরেস্ট মৃত্যু কোন কিছুকেই ভয় পায় না।
কিন্তু এসব আহাদ নিজ থেকে তৈরি হয় না। পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র এদের তৈরি করে। আহাদের মামা আইডিএফ সেনাদের গুলিতে মরেছে। আহাদের মা বিগত বছরগুলোতে তিন বার গ্রেফতার হয়েছে, সেনাদের গুলিতে পায়ে মারাত্মক ভাবে জখমও হয়েছে। আহাদের বাবা দুই বার গ্রেফতার হয়েছে, আর ১৮ মাস জেলও খেটেছে। তারা অকুতোভয় একটি পরিবার।

আহাদের বাবা মায়ের মতে, “the village has a “right to resist” Israeli soldiers on their lands. “We cannot live normally under occupation,” Bassem said. “We have no choice but to resist. “But because we resist, we pay the price.”

কিন্তু ইসরায়েলি শিক্ষামন্ত্রীর মতে এই ঘটনার জন্য আহাদের শাস্তি হওয়া উচিৎ আজীবন কারাগার। আর তিনি সেই সেনা, যে মুহম্মদকে মাথায় গুলি করেছে তার এক দিনের কারাবাসও চান না। সাচ ইজ দেয়ার সেন্স অফ জাস্টিস। সাচ ইজ দেয়ার মোরালিটি।

এই মুহূর্তে ১৬ বছর বয়েসি আহেদ তামিমি ইসরায়েলীদের কাপুরুষীত ভায়োলেন্ট অকুপেশানের বিরুদ্ধে একজন লড়াকু হিরো। আহেদকে ডাকা হচ্ছে ‘ফেইস অফ দ্যা রেসিস্টেন্স।’ বলা হচ্ছে এই ছোট মেয়েটা যেই সাহস আর শক্তি দেখাতে পারছে, যে রেসিস্টেন্স দেখাতে পারছে তা আরব দেশগুলোর নেতারাও দেখাতে পারছে না। শি ইজ বিকামিং এন আইকন ফর রেসিস্টেন্স এভ্রিহয়ার। আর সেখানে ইসরায়েলী অথোরিটির আপত্তি।

Sabina Ahmed

About banglamail

Check Also

বাসার ভাড়াটিয়াকে জিম্মি করে তিন কোটি টাকা চাঁদা নিয়েছেন শেখ রেহানা !

আমরা কেউই শতভাগ ফেরেস্তা না, মানুষ। তাই ভূল করি, পাপ করি! কিন্তু কেউ একজন বলতে …