ফেসবুকে প্রকাশ্যে মুর্তির পক্ষে অবস্থান নেয়ায় নাস্তিক জাফর ইকবালের নামের মুহাম্মদ তুলে দেয়ার দাবি !

বিখ্যাত ড্রোন বিজ্ঞানী জাফর ইকবাল আপনি ভাস্কর্যের পক্ষ নিয়ে হেফাজতকে কিছু প্রশ্ন ছুরে দিলেন। “হেফাজতে ইসলাম বলছে, আমরা কবিতা পড়তে পারব না, আমরা ভাস্কর্য দেখতে পারব না, তাদের কে এ কথা বলার অধিকার দিয়েছে?” ডিয়ার ড্রোন বিজ্ঞানী,আমরা বলতে চাই ভাস্কর্য উচ্ছেদের বিষয়ে কোনো দলিয় ব্যাপার জড়িত নয়,যদিও থেকেও থাকে তা আমাদের জানার বিষয় নয়। তবে এটা একমত যে ভাস্কর্য উচ্ছেদের পেছনে একজন মুসলিম হিসেবে প্রত্যেকটা আম মানুষের মত ছিলো কেবল মাত্র আপনার মত চুশীলদের ব্যাতিত।যারা সংখ্যায় খুবি নগন্য। আপনি বললেন “হেফাজতকে কে এই অধিকার দিলো”। এখানে একটু কারেকশন হবে “মুসলিমদের কে এই অধিকার দিলো” এই কথা বলে আপনি মূলত ইসলামকেই প্রশ্ন বিদ্ধ করতে চাইছেন। তাহলে জেনে রাখুন এই অধিকার আমাদের ইসলাম দিয়েছে। ডাইরেক্ট স্রষ্টা প্রদত্ত। আপনার মত জঘন্য মানের কীট আমাদের আদর্শ হতেই পারেনা। আমাদের আদর্শ মুহাম্মদ সাঃ। আমরা তাকেই ফলো করছি। আপনি আরোও বললেন, “অসম্ভব ধর্মপ্রাণ একজন মানুষ যে পুরোপুরি সেক্যুলার হতে পারে, সেগুলো আমি আমার মা-বাবার কাছ থেকে জেনেছি।” আপনার এই উক্তিটুকু প্রমান করে আপনি ধর্ম সম্পর্কে কতটুকু জ্ঞান রাখেন। আপনার অবগতির জন্য আরোও একবার জানানো যাইতেছে যে, হেফাজত নয় একজন মুসলিম হিসেবে ঈমানি দায়িত্ত থেকে আমরা দেশের সকল প্রানীর মূর্তি উচ্ছেদ চাই। এটা একজন সাধারন মুসলিমের দাবি। কোনো হেফাজত নয়। আর হে,আপনাদের মত সেকুলার বান্দরেরা তো চেতনা ফেরি করে জীবিকা নির্বাহ করেন। লজ্জা করেনা,একাত্তুরের মুক্তি যোদ্ধাদের অবদানকে একটি ভিন দেশি মূর্তির জন্য এইভাবে নিচে নামাতে। তারাতো ভিন্ন সংস্কৃতির জন্য লড়াই করেনি। তারাতো গ্রীকের জন্য লড়েনি। এই দেশে আপনার মত সেকুলারেরাই থাকেনা যে দেশ কেবল আপনার কথায় চলবে,এদেশে ৯২% ধার্মিকেরও বাস।অতএব মাইন্ড ইউর ল্যাংগুয়েজ।

রুপক ইবরাহীম

Comments Us On Facebook:

Leave a Reply