Wednesday , September 19 2018
Home / রাজনীতি / ধর্ষকদের আগলে রাখলেও স্বামীদের কাউকেই আগলে রাখতে পারেননি তারানা হালিম !

ধর্ষকদের আগলে রাখলেও স্বামীদের কাউকেই আগলে রাখতে পারেননি তারানা হালিম !

কৈশোর বয়স থেকেই রাজনিতীর প্রতি তার ঝোঁক ছিল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃতীয় বর্ষে অধ্যয়নকালে যুবলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নির্বাচিত হন তিনি। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং বর্তমানে একই সংগঠনের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। ২০০৯ সালে তিনি জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে সংসদ সদস্য হিসেবে প্রথম নির্বাচিত হন।

পরবর্তীতে ২০১৪ সালে, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন তিনি। বর্তমানে কর্তব্যরত রয়েছেন বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে। তিনি জুলাই ১৪, ২০১৫ সালে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব প্রাপ্ত হন।

রাজপথে নানা ইস্যুতে হরহামেশাই দেখা যায় তারানা হালিমকে। এখনকার পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদ তারানা হালিমের প্রথম পরিচয় তিনি একজন অভিনেত্রী। তারানা হালিমের প্রথম স্বামী হতে বড় ছেলে প্রীতম। আরো এক ছেলে আছে ঐ স্বামী হতে। বিবাহ বিচ্ছেদের পর তারানা হালিম বিয়ে করেছিলেন অভিনেতা আহমেদ রুবেলকে। ভালোই কাটছিলো বিয়ের প্রথম দিকের সময়। তবে সে ভালো থাকা ছিলো স্বল্প সময়ের। তারানা হালিম এবং আহমেদ রুবেলের সংসার টিকেনি বেশি দিন। ডির্ভোসের পর তারানা হালিম আর নতুন করে বিয়ে করেননি। একলাই থাকছেন একলা ঘরে।

সিলেটের ওসমানীনগরে এক অনুষ্ঠানে যৌন নিপীড়ন মামলার এক আসামী ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের পাশে দাঁড়িয়ে ছবি তোললেও তিনি তাকে চিনতেন না বলে জানিয়েছেন। নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়েজ আমীন রাসেল গত বছরের ৩০ নভেম্বর হবিগঞ্জে এক গৃহবধূকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন, জামিন পেয়ে বের হলেও সেই মামলাটি এখনো বিচারাধীন। জামিনে থাকা অপরাধী ফয়েজ আমীন রাসেলের সঙ্গে ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের ছবি বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর সমালোচনার ঝড় ওঠে সর্বত্র।

যৌন নিপড়নের দায়ে অভিযুক্ত ফয়েজ আমীন রাসেলের সঙ্গে ছবি বিতর্ককে অনাকাঙ্খিত এবং অসাবধানতা বশত বলে মন্তব্য করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। এ প্রসঙ্গে তারানা হালিম বলেছেন,‘সিলেট সফরকালীন শত শত মানুষ আমাকে এসে ফুল দিয়ে গেছেন, ছবি তুলেছেন। এতো মানুষের ভিড়ে কে চোর, কে ডাকাত, কে ধর্ষক; তা নিশ্চয় আমার চিনবার কথা নয়?

এদিকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিমের সহকারি একান্ত সচিব (এপিএস) হিসেবে কাজ করছেন ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি জয়দেব নন্দী। তার বিরুদ্ধেও হত্যা, ধর্ষনসহ একাধিক মামলা র​য়েছে।

About banglamail

Check Also

শিবির নেতা শাফিউলকে আটকের অভিযোগ অস্বীকার পুলিশের !

রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকা থেকে ছাত্রশিবির ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ শাখার সভাপতি শাফিউল আলমকে সাদা পোশাকে পুলিশ …