Wednesday , September 19 2018
Home / রাজনীতি / তিনমাসের জন্য অনির্বাচিত সরকার মানতে চায়না অা’লীগ, অথচ জনগনকে ৫ বছরের জন্য মানতে হচ্ছে ! – বদিউল আলম

তিনমাসের জন্য অনির্বাচিত সরকার মানতে চায়না অা’লীগ, অথচ জনগনকে ৫ বছরের জন্য মানতে হচ্ছে ! – বদিউল আলম

তিনমাসের জন্য অনির্বাচিত সরকার মেনে নিতে চায়না অাওয়ামীলীগ! অথচ, নির্বাচন ছাড়াই ১৫৪ জন সংসদ সদস্যকে ৫ বছরের জন্য মানতে হচ্ছে জনগনকে! – বদিউল আলম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় তার ফেসবুকের ওয়ালে লেখেন ,তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থাটি আমাদের সুপ্রিম কোর্ট থেকে অসাংবিধানিক ঘোষিত হয়েছে। আমাদের সংবিধানের মুখবন্ধে বলা হয়েছে বাংলাদেশ একটি গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র যা “নির্বাচিত” জনপ্রতিনিধিদের শাসনাধীন। যার অর্থ হলো যেকোনো “অনির্বাচিত” সরকার অসাংবিধানিক। অনেক মাস আগে থেকেই আমরা বিরোধী দলের কাছে ‘নির্বাচিত’ অন্তর্বর্তীকালীন সরকার ব্যবস্থা নিয়ে সমঝোতা প্রস্তাব দিয়ে রেখেছি।

জয় আরও লিখেন, “যাই হোক, আমাদের বিরোধী দল বারবার এই ধরনের যেকোনো আলোচনা প্রত্যাখ্যান করেছে এবং এর পরিবর্তে আল্টিমেটাম দিয়ে যাচ্ছে। এই মুহূর্তে আলোচনা ফলপ্রসূ হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি না। বিরোধী দল একের পর এক আল্টিমেটাম এবং হুমকি দিয়েই যাচ্ছে, কিন্তু যাই হোক না কেন শেষ পর্যন্ত তারা নির্বাচনে আসবে। তারা গত চার বছর ধরে স্থানীয় নির্বাচনে বারবার এই কাজ করেছে।” ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীপুত্র বলেন, “বাস্তবতা এই যে, আওয়ামী লীগ কখনও কোনো নির্বাচনে কারচুপি করেনি। এবারকার সময় নির্বাচন কমিশনের অধিনে ছয় হাজারের বেশি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং সব নির্বাচনই অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। শুধুমাত্র বিএনপি নির্বাচনে কারচুপির আশ্রয় নেয়। তারা ১৯৯৬ সালে একটি জোচ্চুরির ইলেকশন করেছিল যার ফলে তাদের পদত্যাগে বাধ্য করা হয়েছিল।

২০০৬ সালে তারা একটি নতুন খসড়া ভোটার তালিকা বানিয়েছিল যাতে অন্তত এক কোটি ৪০ লাখ ভুয়া ভোটার ছিল। এমনকি রাষ্ট্রপতি ইয়াজউদ্দীন সংবিধানের সাতটি ধাপ পাশ কাটিয়ে উত্তরাধিকারসূত্রে নিজেকে প্রধান উপদেষ্টা নিয়োগ করেছিল, যার মাধ্যমে তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছে। এটা ছিল বিএনপির ২০০৭-এর নির্বাচনে কারচুপি করার ভয়ানক প্রচেষ্টা, যা সমারিক বাহিনীকে ক্ষমতা দখলের সুযোগ তৈরি করে দেয়।” জয় আরও লিখেন, “যখন বিএনপি বারবার বাংলাদেশে গণতন্ত্র ধ্বংস করার চেষ্টা করেছে, আওয়ামী লীগ সবসময় তা রক্ষা করে সমুন্নত রেখেছে। এখন সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় আপনার, আপনি কাদের বেছে নেবেন?”

About banglamail

Check Also

ধর্ষকদের আগলে রাখলেও স্বামীদের কাউকেই আগলে রাখতে পারেননি তারানা হালিম !

কৈশোর বয়স থেকেই রাজনিতীর প্রতি তার ঝোঁক ছিল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তৃতীয় বর্ষে অধ্যয়নকালে যুবলীগের মহিলা …