৬ নারীকে ধর্ষণের পর ভিডিও ধারণের অভিযোগ ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে নারায়ণপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফ হাওলাদারের বিরুদ্ধে ৬ নারীকে ধর্ষণের পর ইন্টারনেটে ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। এর পরপরই আরিফকে বহিষ্কার করে ভেদরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ। এদিকে হুমকি ও লোকলজ্জার ভয়ে গ্রাম ছেড়েছে নির্যাতিতারা ও তাদের পরিবার।এলাকাবাসীর অভিযোগ, আরিফ হাওলাদার ক্ষমতার অপব্যবহার করে নারায়ণপুর ইউনিয়নে দীর্ঘদিন ধরে অসামাজিক কাজ করে আসছে। ইউনিয়নের ২ গৃহবধূর গোসলের গোপন ভিডিও ধারণ করে, তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে তাদের ধর্ষণ করে সে।নির্যাতিতাদের কাছ থেকে অর্থও আদায় করে আরিফ। এছাড়া একই ইউনিয়নের ৩ কলেজ ছাত্রীকেও ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। এমনকি আরিফের দূরসম্পর্কের বোন তার নির্যাতনের শিকার বলে অভিযোগ রয়েছে।স্থানীয় একজন বলেন, ‘এই নিকৃষ্ট কাজের সাথে জড়িতদের সরকার বিচার করলে আমরা দেশবাসী শান্তিতে থাকতে পারতাম।১৫ অক্টোবর ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ার পর আরিফকে বহিষ্কার করে উপজেলা ছাত্রলীগ।

শরীয়তপুর ভেদরগঞ্জের উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সোহাগ রাঢ়ী বলেন, ‘জেলা এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি, সম্পাদকের সঙ্গে যোগাযোগ সাপেক্ষে অনৈতিক কাজের দায়ে সাংগঠনিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী আরিফ হোসেন হাওলাদারকে তাৎক্ষণিকভাবে বহিষ্কার করি।’এঘটনায় এরইমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে বলে জানায় শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মেহেদী হাসান।তিনি বলেন, ‘এই ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’স্থানীয় এম এ রেজা কলেজের ছাত্র আরিফ হাওলাদার বিগত ১০ দিন ধরে পলাতক রয়েছে। অবিলম্বে তাকে আটক করে বিচারের আওতায় আনার দাবি এলাকাবাসীর।

Comments Us On Facebook: