রাজনীতির মাঠেও বিরোধী দলকে দমিয়ে তিনি একাই খেলোয়াড় !

আওয়ামীলীগ রাজনৈতিকভাবে এক ঘৃণ্য পথ বেছে নিয়েছে। বিরোধী দলকে দলন-পিড়ন, মামলা-মোকদ্দমা দিয়ে ব্যতিব্যস্ত রেখে নির্বাচনকে নিজেদের করায়ত্বে রেখে নির্বাচনের বৈতরনী পার হতে চায়। ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেল করতে চায়! অর্থনৈতিক দেউলিয়ত্বপনা, রাজনৈতিক কলহ , প্রশাসনিক দলীয়করনের ধৃষ্টতা ও দলীয় অন্ত:কোন্দলে সরকারের ত্রাহী ত্রাহী অবস্থা। এমতাবস্থায় পেছনের দরজা দিয়ে মহাজোটের ক্ষমতায় আসা বৈ অন্য কোন উপায় নেই। তাই সরকারের শেষের দিকে বিরোধী দলের উল্লেখযোগ্য জনপ্রিয় নেতা-নেত্রীদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেফতার, হয়রানী এমনকি গুমের মতো ঘটনা ঘটাচ্ছে বলে সরব অভিযোগ উঠেছে।

তারেক রহমানকে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা সহ ডজন ডজন মামলা দিয়ে দেশে আসা থেকে নিবৃত রেখেছে। এভাবে বিএনপির সাংসদ ও আগামী দিনের জনপ্রিয় সম্ভাব্য প্রার্থীদেরকে মামলার পর মামলা দিয়ে সাজা প্রাপ্ত আসামী করে নির্বাচনে অযোগ্য ঘোষনা করার জন্য হীন চক্রান্ত চলাচ্ছে। সম্প্রতি বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদের নামে একের পর এক দ্রুত মামলা দিচ্ছে। এতে করে সরকার খালি মাঠে গোল দেয়ার অপচেষ্টায় মেতে উঠেছে। সরকারের এহেন অপচেষ্টা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে ফ্যাসিবাদী আচরণ আগামী দিনে দেশকে মহা সংকটে নিয়ে যাবে। দেশের অভ্যন্তরীন গোলোযোগে ফায়দা লুটবে সাম্রাজ্যবাদীরা। বিপন্ন হবে দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব।

সরকারের তরফ থেকে বিরোধী দলকে তাদের গণতান্ত্রিক কর্মসূচী পালন করতে দিচ্ছেনা ,রাস্তা দাড়াতে দিচ্ছেনা, পুলিশের লাঠি পেটা,গুলি,টিয়ার সেল ,অমানুষিক নির্যাতন বিরোধী শিবিরকে বিষিয়ে তুলেছে। এমন বাকাশালী আচরণে এ পর্যন্ত অনেককে জীবন দিতে হল। এ অচরণের ভাষা সংঘাত ছাড়া কি আর আসা করা যেতে পারে।

Comments Us On Facebook: